এ সরকার দেশকে আওয়ামীলীগের দেশ বানাতে চায় -ঠাকুরগাঁওয়ে মির্জা ফখরুল

লেখক: হাসান বাপ্পী, ঠাকুরগাঁও
প্রকাশ: ১ সপ্তাহ আগে

দেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা আওয়ামীলীগ সরকারের কাছে এক দিনের টোপর মাথার বরের মত উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের দেশের লোকেরা আসইে অনেক সহজ সরল। হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরাও তাই। তারা বুঝতেও পারেনা যে টোপর মাথায় পড়া এক দিনের বরের যে কদর থাকে, এক দিনের ভোটকে কেন্দ্র করে এ সরকারের কাছে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরাও ঠিক তাই।

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ফ্রন্ট এর এক সভায় ঠাকুরগাঁওয়ে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। এর আগে সকালে তিনি দলীয় কার্যালয়ে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানেও প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

মির্জা আলমগীর বলেন, দেশের বিভিন্ন জায়গায় আজ যে মারামারি, হানাহানি, মন্দীর ভাংচুরের মত সাম্প্রদায়িক ঘটনা গুলো ঘটছে, এগুলো সব বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারই ঘটাচ্ছে। আর এতে করে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করা আওয়ামীলীগের কাছেই সুরক্ষিত নয়। এ সরকার বারবার সাম্প্রদায়ীক ঘটনা গুলো অস্ত্র বানিয়ে বিএনপির ওপর চাপিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, যারাই ভিন্ন মত পোষণ করবে তাদেরকেই এ সরকার সন্ত্রাস বানিয়ে দেয়। তারা এ দেশকে আওয়ামীলীগের দেশ বানাতে চায়। আগামী দিনে জনগনকে সাথে নিয়ে শান্তিপূর্ন আন্দেলনের মাধ্যমে এই জবরদখলকারী সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে জনগনের সরকার প্রতিষ্ঠা করা হকেব। ১৪ বছর ক্ষমতায় থাকা এই সরকারকে আর কোনভাবেই ভোট চুরির সুযোগ দেওয়া হবে না।

২৭ দফা নতুন রূপরেখা অনুযায়ী দেশ পরিচালনা করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, দুর্নিতিবাজদের চিহ্নিত করে কমিশন গঠনের মাধ্যমে তাদের বিচার নিশ্চিত করা হবে। ন্যায় বিচার নিশ্চিত করার জন্য বিচারবিভাগীয় কমিমন গঠন করে জনগণের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতি পরপর দুই মেয়াদের বেশি ক্ষমতায় থাকতে পারবেনা এ লক্ষ্যে সংশোধনি করা হবে।

এসময় তার সাথে জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমিন, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ফ্রন্ট এর সভাপতি মনোরঞ্জন সিং সহ জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

বিডি/বাপ্পী