ওসি ফিরোজ কবিরের নেতৃত্বে ঠাকুরগাঁও সদর থানার আইন-শৃঙ্খলার ব্যাপক উন্নতি

লেখক: বাংলা ২৪ ভয়েস ডেস্ক
প্রকাশ: ৭ মাস আগে

ঠাকুরগাঁও সদরে এখন আলোচিত নাম ওসি ফিরোজ কবীর।কেননা ঠাকুরগাঁও সদর থানায় যোগদানের পর থেকে তাঁর নিরলস প্রচেষ্টায় থানা এলাকায় কমেছে চুরি, ছিনতাই, জুয়া-মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিং সহ নানা অপরাধমুলক কর্মকান্ড। সেই সাথে বেড়েছে পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা।

ঠাকুরগাঁও সদর থানায় যোগদানের পরেই মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেন ওসি ফিরোজ কবির। এর পর থেকেই বিভিন্ন মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে গ্রেফতার করা হয় বেশ কয়েকজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীকে।

এদিকে থানা পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান এবং পর্যটন/বিনোদন কেন্দ্রে অসামাজিক কার্যক্রম বন্ধে গৃহিত পদক্ষেপ বাধাগ্রস্থ করতে নানা কৌশল অবলম্বন করে অপরাধীরা।ওসির কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করতে নানা অপ-প্রচারও চালাতে থাকে বিশেষ একটি কুচক্রী মহল।তবে সেদিকে ভ্রুক্ষেপ নেই তাঁর, তিনি তার কর্মে অবিচল ও অনড় থেকে দিনরাত অপরাধীদের কর্মকান্ড বন্ধে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।

ওসি ফিরোজ কবির সদর থানায় যোগদানের পর থেকে নিজ যোগ্যতা আর দক্ষতার বলে থানার সচেতন ও সাধারণ এলাকাবাসীর মন জয় করেছেন।সেই সাথে একজন সফল ওসি হিসেবে যেসকল গুণাবলী প্রয়োজন তা তিনি দেখাতে সক্ষম হয়েছেন। দাগী অপরাধীদের অপরাধমূলক কর্মকান্ডের লাগাম টেনে ধরেছে তাঁর নেতৃত্বে থাকা ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশ।কঠোর হাতে দমন করছেন অপরাধমুলক কর্মকান্ড।

এদিকে থানা এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে থানা পুলিশের টহল জোরদার থাকায় অপরাধমূলক কর্মকান্ড অনেকটাই কমেছে বলে জানান এলাকাবাসীরা। আগে অলিতে গলিতে বিভিন্ন অপরাধীরা হরহামেশাই অপরাধে লিপ্ত থাকায় অতিষ্ঠ ছিলো এলাকাবাসী। যেসব এলাকায় অপরাধীদের আড্ডা ছিলো সেসব এলাকার অপরাধীদের আখড়ায় ওসি ফিরোজ কবির নিজেই অভিযান করেছেন। এলাকাবাসী জানান, আগের তুলনায় ঠাকুরগাঁও সদর থানার প্রত্যেকটি এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অনেকটাই ভালো। থানা পুলিশের টহল বৃদ্ধি করায় অপরাধীদের আনাগোনা কমেছে। প্রতিদিন যদি নিয়মিত থানা পুলিশের তৎপরতা থাকে তাহলে অপরাধীরা অপরাধ কর্মকান্ড করতে সুযোগ পাবেনা বলে জানান সাধারণ জনগণ।

ঠাকুরগাঁও থানায় ওসি হিসেবে ফিরোজ কবির যোগদানের পর থেকে থানা এলাকায় মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, ভুমিদস্যুতা সহ সকল অপরাধ কমে এসেছে। থানা এলাকায় চুরি, ডাকাতিসহ ছিনতাইয়ের মত অপরাধ তার কঠোর হস্তক্ষেপে সহনশীল পর্যায় রয়েছে। বিভিন্ন অপকর্মে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় এলাকাবাসী ওসি ফিরোজ কবিরের প্রশংসা করছেন।

ঠাকুরগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ কবির বলেন, ঠাকুরগাঁও সদর থানার বিভিন্ন এলাকা থেকে ইতিমধ্যে অনেক অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে। থানা পুলিশ এলাকাবাসীকে সেবা প্রদান করার জন্য সব সময় প্রস্তুত। মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসীদের ধরতে এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করছে। তিনি আরো বলেন, ঠাকুরগাঁও সদর থানায় যতদিন আছি ততদিন অপরাধীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছি। অপরাধী যত বড় প্রভাবশালী হউক অপরাধ করলে ছাড় নাই। মাননীয় জেলা পুলিশ সুপার উত্তম কুমার পাঠক মহোদয়ের নির্দেশে আমি অপরাধীদের বিরুদ্ধে কাজ করতে বদ্ধপরিকর।

এছাড়াও তিনি মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসীদের নির্মুলে তাদের বিষয়ে গোপনে তথ্য দেওয়ার জন্য ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা বাসিদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান।তিনি বলেন, পুলিশকে যদি অপরাধীদের বিষয়ে তথ্য দেওয়া হয় তাহলে পুলিশ আরও সোচ্চার হবে এবং এসব অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে পারবে।

ডেস্ক/বিডি/রিফাত

  • ওসি ফিরোজ কবীর
  • ঠাকুরগাঁও সদর থানা
  •    

    কপি করলে খবর আছে