ঠাকুরগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে মসজিদের নামে জমি দখলের অভিযোগ!

লেখক: নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ৯ মাস আগে

ঠাকুরগাঁওয়ে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে মসজিদের নামে অবৈধভাবে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। এতে বাঁধা দিতে গেলে অবৈধ দখলকারিদের হামলায় দুইজন আহত হয়েছেন। পরে জরুরী সেবা ৯৯৯-এ কল দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ভূক্তভোগি ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার পূর্ব বেগুনবাড়ী নামক এলাকায়। এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের হামলায় মারুফ ও সুমন নামে দুজন আহত হয়েছেন।

অভিযুক্তরা হলেন- দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের মো: মফিজুর রহমানের ছেলে মো: জামাল, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার পূর্ব বেগুনবাড়ী নতুন পাড়া গ্রামের মো: মোরশেদ আলম, বেলাল হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, মো: আরিফ, মো: আবু তাহের, আব্দুল জলিল, মো: এবায়দুল্লাহ, মোহাম্মদুল্লাহ, মো: ইউসুব, ইদ্রিস আলী, জামাল, মো: মানিক, মো: আনোয়ার, মো: সিরাজ, নূর আলম, মো: এরশাদ আলী, রাসেল রানা ও রবিউল ইসলাম।

অভিযোগকারি ও পূর্ব বেগুনবাড়ী বাইতুল নূর জামে মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা মো: আমানউল্লাহ জানান, মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা তিনি এবং প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে মসজিদ কমিটির ক্যাশিয়ার, সেক্রেটারী সহ সর্বশেষ গত রোজার ঈদের আগমুহুর্ত পর্যন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। মসজিদ নির্মাণের জন্য তিনি সাড়ে ১২ শতক জমি দানও করেছেন। অথচ গোপন আতাতের মাধ্যমে আমি মসজিদ কমিটির সভাপতি হওয়া সত্বেও গত রোজার ঈদের আগে আমাকে না জানিয়ে আমাকে বাদ দিয়ে তারা মো: এবায়দুল্লাহ নামে এক ব্যক্তিকে সভাপতি বানিয়ে নতুন কমিটি ঘোষণা করেন। আর নতুন কমিটি ঘোষণার পর থেকেই তারা আমার ব্যক্তিগত জমি দখলের পায়তারা করে আসছেন। এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসকের সাথে সাক্ষাৎ করলে তিনি বিষয়টি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু তাহের মো: সামসুজ্জামানকে দায়িত্ব দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ও সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং সেখানে বিজ্ঞ আদালত ১৪৪ ধারা জারি করেন।

আমানউল্লাহ আরও জানান, ১৪৪ ধারা বলবৎ থাকাবস্থায় গত ৯ জুন বিবাদীরা আদালতের নির্দশ অমান্য করে মহেন্দ্র ট্রাক্টরে করে আমার জমি জবর দখলের উদ্দেশ্যে অবৈধভাবে মাটি ভরাট করতে থাকেন। এসময় তাদের বাঁধা দিতে গেলে তারা সংঘবদ্ধ হয়ে দেশিয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালান। তাদের হামলায় দুজন গুরুতর আহত হয়। পরে ৯৯৯-এ কল করলে সদর থানা থেকে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনায় তিনি ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন এবং ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। তিনি বলেন, আল্লাহ’র ঘরকে নিয়ে যারা ব্যবসা করতে চায়, মসজিদের নাম ব্যবহার করে যারা দখলবাজীতে লিপ্ত হয়-আর যাই হোক তারা প্রকৃত ঈমানদার মুসলিম নয়।

এদিকে এ বিষয়ে কথা বলতে পূর্ব বেগুনবাড়ী বাইতুল নূর জামে মসজিদের বর্তমান কমিটির সভাপতি মো: এবায়দুল্লাহ’র মুঠোফোনে  যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) মো: আব্দুল লতিফ শেখ জানান, মসজিদের নাম করে জমি দখলের অভিযোগ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আজ সন্ধ্যায় উভয় পক্ষকে নিয়ে থানা চত্বরে বসার কথা রয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিষয়টি ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অবগত আছেন। আশা করি উভয় পক্ষের সাথে আলোচনায় একটি সঠিক সমাধান পাওয়া যাবে।

ডেস্ক/বিডি

  • জমি দখল
  • ১৪৪ ধারা উপেক্ষা
  •    

    কপি করলে খবর আছে