পরকিয়ার অভিযাগে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করায় গ্রেফতার স্বামী !

লেখক: আজিজুল ইসলাম বারী. লালমনিরহাট প্রতিনিধি
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

লালমনিরহাটের আদিতমারীতে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করার অভিযোগে স্বামী মমিনুর রহমান(২৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের মদনপুর ডিপেরপাড় এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ওই এলাকার মোক্তার আলীর ছেলে।
মামলার বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় আড়াই বছর আগে কালীগঞ্জ উপজেলার ভুল্লারহাট এলাকার নুরুজ্জামানের মেয়ে নুরীফার (২০) সঙ্গে বিয়ে হয় মমিনুর রহমানের। বিয়ের পর থেকে পরকীয়ার সন্দেহে প্রতিবেশী নারীদের সঙ্গে চলাফেরা ও কথা বলা বন্ধ করেন স্বামী মমিনুর। প্রায় গৃহবন্দি ছিলেন ওই গৃহবধূ। এ নিয়ে কারণে-অকারণে প্রায় সময় তাকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতেন স্বামী ও শ্বশুর। মাথা ন্যাড়া করলে স্ত্রী ঘরের বাইরে যাবে না এই ধারণা থেকে গত ৩১ মার্চ ভোরে জোর করে ব্লেড দিয়ে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করেন মমিনুর রহমান। বিষয়টি গোপন রাখতে কঠোর নিষেধ আরোপ করেন।
বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) বিকেলে আবারও স্ত্রীকে মারপিট করলে মাথা ন্যাড়া করার বিষয়টি গ্রামবাসীর নজরে আসে। পরে বিষয়টি গৃহবধূর বাবার বাড়িতে জানাজানি হলে তারা হটলাইন ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশের সহায়তা দাবি করেন। পরে আদিতমারী থানা পুলিশ ওই বাড়ি থেকে গৃহবধূকে উদ্ধার করে আদিতমারী হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সময় স্বামী মমিনুর রহমানকে আটক করে।
এ ঘটনায় নির্যাতিত গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে আদিতমারী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ নিয়মিত মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করে আটক স্বামী মমিনুরকে গ্রেপ্তার দেখায়।
নির্যাতিত গৃহবধূ নুরীফা বলেন, কোনো কারণ ছাড়াই প্রায় সময় মারপিট করেন মমিনুর। বিয়ের পর থেকে প্রতিবেশী ও বাবার বাড়ির সঙ্গে ফোনেও যোগাযোগ করতে দিতো না। মাথা ন্যাড়া করার বিষয়টি প্রকাশ করলে তালাকসহ মেরে ফেলার হুমকি দেন।
নির্যাতিত গৃহবধূর বাবা নুরুজ্জামান বলেন, বিয়ের পর থেকে মেয়ের সঙ্গে মোবাইল ফোন তো দূরের কথা, বাড়িতেও দেখা করতে দিত না।
আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম বলেন, নির্যাতিতার বাবার দায়ের করা অভিযোগটি আমলে নিয়ে মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী মমিনুরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বিডি/বারী