বালিয়াডাঙ্গীতে প্রধানমন্ত্রী ও এমপি দবিরুলকে নিয়ে কটুক্তি; বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ পন্ড !

লেখক: নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

কেন্দ্রীয় কর্মসুচির অংশ হিসেবে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে সার, জ্বালানী তেল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের উর্ধগতির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্থানীয় এমপি দবিরুল ইসলামকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দানকালে আওয়ামী নেতা-কর্মীদের হামলায় উপজেলা বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ পন্ড হয়ে গেছে।এসময় দলীয় কার্যালয়ে ঘণ্টাব্যাপী অবরুদ্ধ ছিলেন জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতারা।এছাড়াও এসময় বিএনপির অর্ধ শতাধিক নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি বিএনপির।

বুধবার বিকেলে বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচি শেষে নেতা-কর্মীদের বক্তব্য দেওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বালিয়াডাঙ্গী চৌরাস্তা বাজারে থমথমে পরিবেশ সৃষ্টি হয়।এদিকে নেতা-কর্মীদের অবরুদ্ধ রেখে আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনগুলো পাল্টা বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা।

প্রত্যদর্শীরা জানান, দলীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিকেল ৩টায় পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা বিএনপি ঘোষিত বিক্ষোভ মিছিল হয় চৌরাস্তায়। এরপর দলীয় কার্যালয়ের সামনে সভায় বক্তব্য প্রদান শুরু করেন দলীয় নেতা-কর্মীরা। এসময় বিএনপি’র এক নারী নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্থানীয় এমপি দবিরুল ইসলামকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দিলে আওয়ামী নেতা-কর্মীরা সমাবেশ পন্ড করে দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. এটিএম মাহবুবুর রহমান জানান, শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির শেষ পর্যায়ে আওয়ামী লীগ ও পুলিশ যৌথভাবে আমাদের ওপর হামলা চালায় এবং ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে আমরা দলীয় কার্যালয়ের ভেতর অবস্থান নিলে বাইরে সভাস্থল ভাঙচুর করেন তারা। আমরা জেলা শীর্ষ নেতা-কর্মীরাসহ প্রায় ২ ঘণ্টা ধরে অবরুদ্ধ ছিলাম।
হামলার বিষয়ে জানতে জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঠাকুরগাঁও-২ আসনের এমপি আলহাজ্ব মো: দবিরুল ইসলামের বড় ছেলে অধ্যক্ষ মাজহারুল ইসলাম সুজনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে বিএনপি নেতারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও এমপি দবিরুল ইসলামকে কটাক্ষ করে বক্তব্য প্রদান করতে থাকেন-এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় আওয়ামীলীগ সমর্থিত সাধারণ মানুষ তা প্রতিহত করেছে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।
এ বিষয়ে বালিয়াডাঙ্গী থানার অফিসার ইনচার্জ খায়রুল আনাম ডন বলেন, বিএনপির উস্কানিমূলক বক্তব্যে প্রদানের সময় আওয়ামী লীগ ও তাঁদের লোকজন হামলা চালায়। পুলিশের সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। পরে পরিবেশ শান্ত হলে দলীয় কার্যালয়ের ভেতর অবরুদ্ধ থাকা বিএনপির নেতা-কর্মীদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁওয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়।
বিক্ষোভ সমাবেশে জেলা বিএনপি সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শরীফ, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ আলম, সাধারণ সম্পাদক ডা. এটিএম মাহবুবুর রহমান,  ড্যাব এর মহাসচিব ডক্টর আব্দুস সালাম, নারী নেত্রী ফুরাতুন নাহার প্যারিস, জেলা যুবদলের সভাপতি আবু নুর চৌধুরী সহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।
বিডি/ডেস্ক