মহান স্বাধীনতা দিবস আজ

লেখক: বাংলা ২৪ ভয়েস ডেস্ক
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা, সাকিনা বিবির কপাল ভাঙলো,সিঁথির সিঁদুর গেল হরিদাসীর। তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা, শহরের বুকে জলপাইয়ের রঙের ট্যাঙ্ক এলো দানবের মত চিত্কার করতে করতে তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা, ছাত্রাবাস বস্তি উজাড় হলো। রিকয়েললেস রাইফেল আর মেশিনগান খই ফোটালো যত্রতত্র।তুমি আসবে ব’লে, ছাই হলো গ্রামের পর গ্রাম।

২৬ মার্চ আজ। বাঙালীর রক্ত, অশ্রুস্নাত বিক্ষুব্ধ বিদ্রোহের দিন।গোটা বাংলার শৃৃঙ্খলমুক্তির দিন। বাঙালীর দীর্ঘ স্বাধিকার আন্দোলনের চূড়ান্ত লড়াইয়ের সূচনা কাল। বিশ্বের বুকে লাল-সবুজের পতাকা ওড়ানোর সূত্র আবিস্কারের সূচনার দিন। কিন্তু এই অধিকার আদায়ে বাঙালী জাতিকে দিতে হয়েছে চরম মূল্য। আজও দেশের স্বাধীনতার ৫১ বছরের এই ক্ষুদ্র পরিসরে দেশ ও জাতি অনেক ঘটন-অঘটন, চড়াই-উতরাইয়ের ঐতিহাসিক সাক্ষী হয়েছে। সময়ে সময়ে এসব ঘটনা প্রেরণা জোগায় পাল্টে দিতে এর গতিপথ। কখনও জাতির জীবনে এসেছে হতাশা-অন্ধকারাচ্ছন্ন মুহূর্ত, কখনও বা হয়েছে সুন্দর আগামীর প্রত্যাশায় উজ্জীবিত।

দীর্ঘ ২৩ বছরের পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙ্গে মুক্তির নেশায় ১৯৭১ সালের এই দিনে বিশ্বের বুকে স্বাধীন অস্তিত্ব ঘোষণা করেছিল বীর বাঙালী জাতি। একমাত্র এই জাতিই দক্ষিণ এশিয়ায় স্বাধীনতার জন্য সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছিল।

ইতিহাসের পৃষ্ঠা রক্তে রঞ্জিত করে, আত্মত্যাগের অতুলনীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করে একাত্তরের এই দিনে এ দেশের মানুষ যে সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল ,তা দীর্ঘ ৯ মাসের এক সাগর রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জন ছিল চূড়ান্ত পরিণতি। রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের সূচনার সেই গৌরব ও অহঙ্কারের দিন আজ। প্রতিবছর মহান স্বাধীনতা দিবস জাতির জীবনের প্রেরণায় উজ্জীবিত হওয়ার নতুন বার্তা নিয়ে আসে।

যাঁদের রক্ত, আত্মত্যাগ ও সম্ভ্রমের বিনিময়ে পেয়েছি এই স্বাধীনতা, তাঁদের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা, ভালবাসা ও বিনম্র শ্রদ্ধা।

ডেস্ক/বিডি