রাণীশংকৈলে পাচারকালে ট্রলিসহ ৮০ বস্তা সার জব্দ

লেখক: নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে গতকাল বুধবার (১৬ নভেম্বর) দিবাগত রাতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং কৃষি অধিদপ্তরের যৌথ অভিযানে বিভিন্ন প্রকারের ৮০ বস্তা রাসায়নিক সার পাশ্ববর্তী পীরগঞ্জ উপজেলায় পাচারকালে পৌরশহরের আবাদ তাকিয়া কামিল মাদ্রসা মোড় হতে আটক করা হয়।
পরে সার বিক্রেতা মেসার্স মুনজুর টেড্রাসের মালিককে অবৈধভাবে সার বিক্রয়ের অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩০ (ত্রিশ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।
জানা গেছে, উপজেলার মনিশগাঁও বাজারের মের্সাস মনজুর ট্রেডার্সের মালিক মনজুর আলম নিধারিত মূল্যের চেয়ে চড়া দামে পীরগঞ্জ উপজেলার ভাকুড়া মাহাত পাড়া গ্রামের সার ব্যাবসায়ী ফজিরউদ্দীন ও মনতাজ আলীর কাছে ৭৫০ টাকার পটাশ ১৫০০টাকায়, ১১০০ টাকার টিএসপি ১৬৫০ টাকায়,  ১১০০ টাকার ইউরিয়া ১২৫০ ও ৮০০ টাকার ডিএপি ৯০০ টাকায় বিক্রি করেন।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইন্দ্রজিত সাহা, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সাবের আলম, উপ-সহকারি কর্মকর্তা মাসুদ রানা ঘটনাস্থলে গিয়ে ট্রলিসহ ৮০ বস্তা সার জব্দ করেন।
এ প্রসঙ্গে কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় দেবনাথ মুঠোফোনে বলেন, মনিশগাঁও বাজারের মের্সাস মনজুর ট্রেডার্সের মালিক মনজুর আলমের সার বিক্রি করার কোন বৈধতা নেই, তার পরেও সে সার কোথায় পেল এবং সে সার আবার চড়া দামে বিক্রি করলো এটা খতিয়ে দেখা হবে।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইন্দ্রজিত সাহা গতকাল রাত ৯ টায় মুঠোফোনে জানান, পাচার করার সময় ৮০ বস্তা সার জব্দ করা হয়েছে। পরে মেসার্স মুনজুর ট্রেডার্সের মালিককে নিয়ম বহির্ভূতভাবে চড়াদামে সার বিক্রির অপরাধে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত: এ উপজেলায় কতিপয় অবৈধ সার ব্যবসায়ী চক্র কৃষি অধিদপ্তরের চোখকে ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে এ উপজেলা থেকে অন্য উপজেলায় চড়াদামে সার পাচার করে আসছে মর্মে অনেকে জানান।
বিডি/হুমায়ুন