রুহিয়ায় বিএনপি-আ’লীগ সংঘর্ষে আহত-১২ !

লেখক: নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ৫ মাস আগে

ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়ায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সমাবেশকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় ১২ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

শনিবার(৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে রুহিয়া চৌরাস্তায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, একই দিনে রুহিয়া থানা বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচি ও থানা মহিলা আওয়ামী লীগের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রুহিয়া থানা এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় সংঘর্ষের সময় ধাওয়া পালটা-ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ হয়। এতে ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনসারুল ইসলাম ও ছাত্রলীগ নেতা মাহিনসহ প্রায় ১২ জন আহত হন। এসময় ২টি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়াসহ রুহিয়া বিএনপি অফিসের সামনে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে রুহিয়ায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান বলেন, আমাদের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন স্থান থেকে সভাস্থলে আসার সময় আওয়ামীলীগের কর্মীরা তাদের মারপিট করে। তারা আমাদের সভামঞ্চে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে, অফিসে ভাংচুর চালিয়েছে এবং অফিসেও অগ্নি সংযোগ করেছে। আমাদের অসংখ্য বিএনপির নেতা কর্মীদের আহত করেছে।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. অরুনাংশু দত্ত টিটো বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে থানা মহিলা আওয়ামী লীগ কর্মসূচির ডাক দিয়েছিলো। দুপুরে হঠাৎ করেই বিএনপির নেতাকর্মীরা এমপি রমেশ চন্দ্র সেনের বাসায় হামলা চালায়। এসময় তারা একজন সাংবাদিককে মারপিট করে। পরে আমাদের ছেলেরা এগিয়ে আসলে তারা আমাদের ছেলেদের মারপিট করে পালিয়ে যায়। তারা আমাদের ৪/৫ টি গাড়ি ভাংচুর করেছে।

রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহেল রানা বলেন, দুটি দল একই সময় সভা ডেকেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুটি দলকে দুটি সময়ের কথা বলা হয়েছিল।তবে বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

বিডি/ডেস্ক