হরিপুরে জমির বিরোধে পাঁচ শতাধিক ফল ধরা লাউ গাছ কেটে দিয়েছে প্রতিপক্ষ

লেখক: বাংলা ২৪ ভয়েস ডেস্ক
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার ৩নং বকুয়া ইউনিয়নের নারগুন গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ১ একর ৩০ শতাংশ জমিতে থাকা আজিজুর রহমানের ছেলে বিপ্লব’র রোপনকৃত প্রায় ৫ শতাধিক ফুল ও ফল আশা লাউ গাছ রাতের অন্ধকারে কেটে ফেলা হয়েছে। এতে প্রায় জালিসহ ৮/৯লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ওই কৃষকের।
শনিবার ভোররাতে উপজেলার ধীরগঞ্জ ইউনিয়নের নারগুন গ্রামে এই ন্যাক্কারজনক  ঘটনা ঘটে।
শনিবার (৯ এপ্রিল) দুপুরে এ বিষয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক বিপ্লব হরিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযুক্তরা হলো- উপজেলার নারগুন গ্রামের বদিউজ্জামানের ছেলে জুয়েল (৩৮), জিএম (৩৫), একই গ্রামের লিটনের ছেলে মুন্না (২৫), মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে সোহাগ (৪০) ও মৃত মোকাম্মেল এর ছেলে বদিউজ্জামান (৬৫)।
অভিযোগকারী বিপ্লব বলেন, জায়গা জমি দখল নেওয়া কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে জুয়েল গংয়ের সাথে আমাদের বিরোধ চলে আসছে। জুয়েল গং এরই মধ্যে আমার ও আমার পরিবারের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলাও করেন। এতেও তারা ক্ষান্ত না হয়ে মাঝে মধ্যে আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের প্রাণ নাশের হুমকিসহ আর্থিকভাবে ক্ষতি করা প্রকাশ্যে যখন-তখন হুমকি দেয়।
এরই সুত্র ধরে শনিবার ভোর আনুমানিক পৌনে ৬টার দিকে অভিযুক্তরাসহ অজ্ঞাত আরো ৪ থেকে ৫ জন দা-হাসুয়া নিয়ে দলবদ্ধ হয়ে আমার জমিতে অনাধিকারভাবে প্রবেশ করে আমার ঘাম ঝরানো কষ্টের, ফুল ও ফল আশা ৫ শতাধিক লাউ গাছের গোড়া থেকে কর্তন করে এবং গাছে থাকা লাউ চুরি করে নিয়ে যায়।
এতে আমার  প্রায় ৯ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে। এমন বর্বর ঘটনার তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে আকুল আবেদন করছি।
প্রতিবেশী তোফায়েল হোসেন জানান, আমার বাড়ির পাশেই তার বাড়ি। সে অন্যের জমি লিজ নিয়ে সবজি চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে। আমি এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
হরিপুর থানা পরিদর্শক (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
বিডি/এএইচ